www.machinnamasta.in

ওঁ শ্রীং হ্রীং ক্লী গং গণপতয়ে বর বরদ সর্বজনস্ময়ী বশমানয় ঠঃ ঠঃ

July 16, 2024 12:08 am
নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)

বিভিন্ন রাজনৈতিক অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে মোদিকে পরিবারতান্ত্রিক রাজনীতির বিরুদ্ধে সরব হতে শোনা গিয়েছে। এবার স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান থেকেও একই ইস্যুতে সরব হলেন তিনি। তবে এদিন প্রধানমন্ত্রী মনে করিয়ে দিয়েছেন,শুধুমাত্র রাজনীতি নয়। দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে স্বজনপোষণ, পরিবারতন্ত্র রয়েছে।

এবার এক আসনে গাঁন্ধী-সাভারকর। একদিকে ৭৫ তম স্বাধীনতার দিনে পুরনো স্বাধীনতার ইতিহাসকে ওলটপালট করে হিন্দুত্বের অবতরণ অন্যদিকে লালকেল্লা (Red Fort) থেকে পরিবারতন্ত্রকে কড়া ভাষায় বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। স্বাধীনতা দিবসের ভাষণেও তাঁর নিশানায় ভাই-ভাতিজাতন্ত্র। মোদির কথায়, “ভাই-ভাতিজাতন্ত্রে দেশের মঙ্গল হয় না।” একইসঙ্গে দুর্নীতি নিয়েও কড়া বার্তা দিলেন তিনি। তেমনি ডাক দিলেন দুর্নীতি রুখতে।

সোমবার সকাল ৭টা ৩৩ মিনিটে লালকেল্লায় ভাষণ শুরু করেন প্রধানমন্ত্রী। ভাষণের শেষলগ্নে পরিবারতন্ত্র, স্বজনপোষণ এবং দুর্নীতি নিয়ে কড়া বার্তা দিলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর সাফ বার্তা, “বর্তমানে দেশ দু’টি বড় চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন। এক, পরিবারতন্ত্র। দুই, দুর্নীতি। এই দুইয়ের বিরুদ্ধেই সচেতনতা বাড়াতে হবে। দেশের প্রতিষ্ঠানগুলিকে স্বজনপোষণ এবং দুর্নীতি মুক্ত করতে হবে।”

বিভিন্ন রাজনৈতিক অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে মোদিকে পরিবারতান্ত্রিক রাজনীতির বিরুদ্ধে সরব হতে শোনা গিয়েছে। এবার স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান থেকেও একই ইস্যুতে সরব হলেন তিনি। তবে এদিন প্রধানমন্ত্রী মনে করিয়ে দিয়েছেন,শুধুমাত্র রাজনীতি নয়। দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে স্বজনপোষণ, পরিবারতন্ত্র রয়েছে। এবার সেই জাল থেকে বেরিয়ে আসা প্রয়োজন বলে দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রী। যোগ্যতার ভিত্তিতেই অগ্রগতির পক্ষে সওয়াল করেছেন তিনি।

শুধু পরিবারতন্ত্র নয়, দেশের প্রভূত ক্ষতি করছে দুর্নীতিও। দেশকে উন্নতির শিখরে নিয়ে যেতে দুর্নীতি দূর করার পক্ষে সওয়াল করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর কথায়, “অনেকে দুর্নীতিতে যুক্ত থাকায় জেলে রয়েছে। তাও তাদের আলোচনা চলছে। দুর্নীতিগ্রস্তদের প্রতি কড়া মনোভাব দেখাতে হবে। দেশের টাকা লুঠ করে লুকিয়ে রাখা হচ্ছে। তাই দুর্নীতিগ্রস্তদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করতে হবে।” স্বাধীনতা দিবসের দিন প্রধানমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি, “প্রভাবশালীরাও বাঁচতে পারবেন না। যারা ব্যাংকের সম্পত্তি নিয়ে পালিয়েছিল তারা জেলে। যারা লুট করেছে তাদের সমস্ত সম্পদ ফেরাতে হবে।”

একাসনে মহাত্মা গান্ধী ও বিনায়ক দামোদর সাভারকর! স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভাষণে মিলল অর্থবহ ইঙ্গিত। শুধু সাভারকর নয়, এদিন হিন্দুত্ববাদীদের আরও এক নায়ক শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়কেও সম্মান জানালেন প্রধানমন্ত্রী।

আজ ৭৬তম স্বাধীনতা দিবসের (Independence Day) আনন্দে মাতোয়ারা দেশ। লালকেল্লা থেকে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। এদিন দেশকে বিদেশি শাসন থেকে মুক্ত করতে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের মরণপণ লড়াইয়ের কথা মণে করিয়ে দেন তিনি। উত্তর-পূর্ব থেকে দাক্ষিণাত্য সবমিলিয়ে ভারতবর্ষের বিভিন্ন অঞ্চলের স্বাধীনতা সংগ্রামীদের কথা উঠে আসে প্রধানমন্ত্রী মোদির মুখে। তিনি বলেন, “মঙ্গল পাণ্ডে, তাতিয়া টোপে, ভগৎ সিং, সুখদেব, রাজগুরু, চন্দ্রশেখর আজাদ, আশফাকুল্লা খান, রামপ্রসাদ বিসমিলের মতো স্বাধীনতা সংগ্রামীদের আজ ধন্যবাদ জানাচ্ছে দেশ।” তিনি আরও বলেন, “স্বাধীনতার বিষয়ে কথা বলার সময় আমরা আদিবাসী সমাজের অবদানের কথা ভুলতে পারি না। ভগবান বিরসা মুণ্ডা, সিধু-কানু, আল্লুরি সীতারাম রাজু, গোবিন্দ গুরু এমন অনেক সংগ্রামী স্বাধীনতার আওয়াজ হয়ে উঠেছিলেন।”

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে, এদিন স্বাধীনতা সংগ্রামীদের সম্মান জানাতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর মুখে হিন্দুত্ববাদীদের ‘আইকন’ বীর সাভারকর ও শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের কথা উঠে আসে। জল্পনা উসকে তিনি বলেন, “আজ দেশবাসী মহাত্মা গান্ধী, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, বীর সাভারকরের প্রতি কৃতজ্ঞ। তাঁরা স্বাধীনতার জন্য নিজেদের প্রাণ বিসর্জন দিয়েছিলেন।”

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে, বিজেপির শাসনে দেশজুড়ে হিন্দুত্ববাদীদের দাপট বেড়েছে বলে অভিযোগ। রাম মন্দির থেকে শুরু করে কাশী বিশ্বনাথ ও জ্ঞানবাপী মসজিদ নিয়ে চলা বিতর্কে ‘হিন্দুরাষ্ট্রে’র পথ চওড়া করা হচ্ছে বলেই মনে করছেন অনেকে। এবার স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে বীর সাভারকরকে (Vinayak Damodar Savarkar) একাসনে বসিয়ে জল্পনা আরও উসকে দিলেন প্রধানমন্ত্রী।

 

administrator

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *