www.machinnamasta.in

ওঁ শ্রীং হ্রীং ক্লী গং গণপতয়ে বর বরদ সর্বজনস্ময়ী বশমানয় ঠঃ ঠঃ

July 15, 2024 11:09 pm

কেন এই ভাবনা? হসপিস ইন্ডিয়ার সম্পাদক নাজমা রায় বলেন, ‘গড়িয়া রেল স্টেশনের কাছাকাছি যেসব এলাকা আছে যেমন পাঁচপোতা, কাটিপোতা, নতুনদিয়াড়া, গঙ্গাজোয়ারা, খেয়াদহ-সহ বিস্তীর্ণ এলাকায় কোনও স্বাস্থ্যকেন্দ্র নেই। এলাকার গরিব সাধারণ মানুষের কাছে স্বাস্থ্য পরিষেবার পৌঁছে দিতে আমরা নানা ভাবে চেষ্টা করছি। প্রদীপ জ্বালানোর আগে সলতে পাকানোর মতো এদিন চক্ষু শিবিরের প্রাক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে সেই পথচলা শুরু হলো

এলাকার গরিব মানুষদের কথা ভেবে কলকাতা সংলগ্ন গড়িয়ায় বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা শিবিরের আয়োজন করল হসপিস ইন্ডিয়া। রবিবার এই শিবিরে উপস্থিত ছিলেন সোনারপুর উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক ফেরদৌসী বেগম ও রাজপুর-সোনারপুর পুরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলার জয়ন্ত সেনগুপ্ত।

সকাল ন’টা থেকে শুরু হওয়া শিবির চলে বিকেল সাড়ে তিনটে পর্যন্ত। ১৬৪ জন রোগীর চক্ষু পরীক্ষার পরে ২৯ জনের চোখের ছানি অপারেশন করা হবে বলে ঠিক হয়। ৯২ জনকে চশমা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন শিবিরের উদ্যোক্তা রোটারি দক্ষিণ বারাসাত চক্ষু হাসপাতাল ও রামকৃষ্ণ ডায়াগনস্টিক সেন্টার প্রাইভেট লিমিটেড।

কেন এই ভাবনা? হসপিস ইন্ডিয়ার সম্পাদক নাজমা রায় বলেন, ‘গড়িয়া রেল স্টেশনের কাছাকাছি যেসব এলাকা আছে যেমন পাঁচপোতা, কাটিপোতা, নতুনদিয়াড়া, গঙ্গাজোয়ারা, খেয়াদহ-সহ বিস্তীর্ণ এলাকায় কোনও স্বাস্থ্যকেন্দ্র নেই। এলাকার গরিব সাধারণ মানুষের কাছে স্বাস্থ্য পরিষেবার পৌঁছে দিতে আমরা নানা ভাবে চেষ্টা করছি। প্রদীপ জ্বালানোর আগে সলতে পাকানোর মতো এদিন চক্ষু শিবিরের প্রাক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে সেই পথচলা শুরু হলো।’ হসপিস ইন্ডিয়ার এই উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন বিধায়ক ফেরদৌসি বেগম।

হসপিস ইন্ডিয়ার পক্ষে চিকিৎসক শুভজিৎ রায় বলেন, ‘কোনও মানুষ চিরকাল বেঁচে থাকে না। কিন্তু মৃত্যুর আগে যাতে তাঁদের যন্ত্রণার উপশম দিতে পারি, সেটাই আমাদের মূল কাজ। আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের সাহায্যে জীবনের চরম প্রতিকূল সময়ে প্রয়োজনীয় সামগ্রিক পরিষেবাই হসপিস্ কেয়ার-এর উদ্দেশ্য। বহুদিনের অক্লান্ত পরিশ্রমে গড়িয়ার পাঁচপোতায় যা গড়ে উঠেছে।’

administrator

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *