www.machinnamasta.in

ওঁ শ্রীং হ্রীং ক্লী গং গণপতয়ে বর বরদ সর্বজনস্ময়ী বশমানয় ঠঃ ঠঃ

June 24, 2024 2:18 am

খবরে আমরাঃ যেমন ভাবা হয়েছিল। সেটাই ঘটেছে।যেমন অমিত শাহের বঙ্গ সফর, যেমন তাঁরই উপস্থিতির মাঝেই খোদ কলকাতায় দলের কর্মীর রহস্য মৃত্যু, যেমন সেই মৃত্যুকে শাহের রাজনৈতিক খুন বলে দাবি করা, যেমন ওই খুনের কয়েক ঘম্টার মধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টে ঘটনাটিকে সামনে রেখে আইনি লড়াই আর যেমন হিসাব মতো ঘটনাটিকে রাজনৈতকভাবে ব্যবহার করে আবার দলের কর্মীদের চাঙ্গা করার চেষ্টা।

অভিজ্ঞতা বলছে, পুলিশ মৃতদেহ পরিবারের ইচ্ছার বিরুদ্ধে উদ্ধার করতে সমর্থ হলেও তদন্ত বেশিদিন তাদের হাতে থাকবে না। গ্রহ, নক্ষত্র ঠিক ঠিক চললে ঘটনার তদন্তে সিবিআই আসাটা সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু ঘটনাকে কেন্দ্র করে অনেকগুলো প্রশ্ন উঠছে। সেই প্রশ্ন চিরকালই অমিমাংসিতই থেকে যাবে।

মৃত্যু সব সময়ই দুখঃজনক। তিনি যেই হন। কাসীপুরে বিজেপি যুব মোর্চা কর্মী অর্জুন চৌরাসিয়ার মৃতদেহ উদ্ধারে সত্যিই রহস্য দানা বাধছে। খুন নাকি আত্মহত্যা, সেতো চিকিৎসকদের রিপোর্ট ও তদন্তকারীরা বলবেন, কিন্তু এর পিছনে যারাই থাকুক তাদের গ্রেফতার করা হোক।

কিন্তু রাজ্যের রাজনৈতিক যাত্রা কিন্তু অন্য কথা বলছে। প্রশ্ন সেখানেই। শাহের উপস্থিতির মাঝেই কেন ঘটল এমন মৃত্যু। নাকি বিধানসভা নির্বাচনে শাহের ডেলি প্যাসেঞ্জারির পরেও বিজেপির ভারডুবির ক্ষত মেটাতেই এমন ঘটনা ঘটে গেল। মৃত্যু স্বাভাবিক হতে পারে, আক্রোশ বশে হতে পারে, তৃণমূলের কীর্তিও হতে পারে। আমাবর এটাও হতে পারে, শাহকে সামনে রেখে শহরের ময়দান দখল করতেই বিজেপি নিজেই এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে। হতেই পারে। সিনেমায় যেমন দেখায় আরকি। ভাবতে হবে, বিজেপির ভরাডুবির পরে গেরুয়া ান্দোল আটকে থেকে গিয়েছিল আদালতের অন্দরেই। ভোট পরবর্তী হিংসা, ধর্ষণ, টেট কেলেঙ্কারি মায় পুলিশ-রাজ্যের বিরুদ্ধে যা পাওয়া গিয়েছে তা মাঠে না গিয়ে সরাসরি আদালতে টেনে আন্দোলন চালিয়ে গিয়েছে তারা। আদালতে শুনানি আর মিডিয়ার ক্যামেরার ফ্ল্যাসব্যাকে থেকে গিয়েছিল তারা।

সবই তদন্তসাপেক্ষ। কিন্তু ফেলে দেওয়ার নয়। কিন্তু খুনের সব কারণ খতিয়ে দেখা হলেও অদেখা থেকে যাবে নাতো উল্টো পিঠে থাকা কারণটি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারে পুলিশের কাছে যদি নিরপেক্ষ তদন্ত না পাওয়া যায়, এটা যদি কারণ হয়ে থাকে তবে শাহের আশীর্বাদে বিজেপির অন্দরের সাজানো গল্প কিনা তা তদন্ত হতে পারে না, এটাই বাস্তব।

সে যাই হোক। মৃত্যুকে ঘিরে তদন্ত চলতে থাকবে। আপাতত কয়েকদিন রাজনৈতিক বাজার সরগরম থাকবে সেটাই বোঝা যাচ্ছে।  

administrator

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *