www.machinnamasta.in

ওঁ শ্রীং হ্রীং ক্লী গং গণপতয়ে বর বরদ সর্বজনস্ময়ী বশমানয় ঠঃ ঠঃ

June 24, 2024 2:27 am

খবরে আমরাঃ যাঁরা খুব রেগে যান, মানে কথায় কথায় রাগ হয় তাঁদের জন্য এই খবর।

কাজের চাপ, দৌঁড়ঝাপ ইত্যাদির কারণে আজকের যুগের অধিকাংশ ব্যক্তিই খিটখিটে, রাগী হয়ে পড়ছেন। এঁদের মধ্যে কোনও ব্যক্তির রাগ কম। আবার কেউ কেউ অকারণে বা ছোটখাটো কারণেই খুব বেশি রাগ করেন। কথায় বলে রাগ মানুষের সবচেয়ে বড় শত্রু। তাই নিজের রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখা অত্যন্ত জরুরি। না-হলে নিজের ক্ষতি হতে বিলম্ব হবে না।

জ্যোতিষ মতে অকারণে রাগের জন্য সেই জাতকের কোষ্ঠীতে উপস্থিত কোনও গ্রহ দোষ দায়ী। রাহু ও মঙ্গল দোষের কারণে ব্যক্তি রেগে থাকতে পারে। রাগ শান্ত করার কিছু উপায় জানাচ্ছে জ্যোতিষ শাস্ত্র। কী ভাবে নিজের রাগ নিয়ন্ত্রণ করবেন জেনে নিন—

চন্দন ব্যবহার করুন

জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে, যে ব্যক্তির রাগ বেশি, তাঁরা চন্দন ব্যবহার করে এর থেকে মুক্তি পেতে পারেন। চন্দন মন শান্ত করার পাশাপাশি রাহু দোষ থেকেও মুক্তি দেয়। যার ফলে রাগ কমতে পারে।

রুপোর ব্যবহার

জ্যোতিষ শাস্ত্র অনুযায়ী কোনও ব্যক্তি যদি কথায় কথায় রেগে যায়, তা হলে তাঁদের রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য রুপোর আংটি বা পেন্ডেন্টে আসল মুক্তো জড়িয়ে ধারণ করুন। রুপো মন শান্ত করে। পাশাপাশি চন্দ্র দোষ দূর করে।

সূর্যখে জলের অর্ঘ্য দিন

রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য নিয়মিত সূর্যকে জলের অর্ঘ্য দিন। স্নানের পর সূর্যকে জল অর্পণ করে ধ্যান করুন।


লাল রঙ এড়িয়ে চলুন

জ্যোতিষ মতে, যে জাতকদের মধ্যে রাগ বেশি, তাঁদের লাল রঙের ব্যবহার কম করে দেওয়া উচিত। লাল রঙ উগ্র স্বভাবের প্রতীক। লালের পরিবর্তে সাদা বা ক্রিম রঙের পোশাক নির্বাচন করতে পারেন।

হনুমান চালিসা পাঠ করুন

প্রতিদিন নিয়ম মেনে হনুমান চালিসা পাঠ করলে শুধু মঙ্গলই শান্ত হবে না, বরং রাগও নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। এ ছাড়াও বাড়িতে সকাল-সন্ধ্যা দুবেলা পূর্ব দিকে প্রদীপ প্রজ্জ্বলিত করুন। এই উপায় করলে রাগ কমানো যাবে।


ধরিত্রীকে প্রণাম করুন

সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর সবার আগে ধরিত্রীকে প্রণাম করুন। তার পর ডান পা সবার আগে মেঝেতে রাখবেন। বিছানা ছেড়ে ওঠার পর অন্তত ১৫ মিনিট কারও সঙ্গে কথা বলবেন না। এর প্রভাবে রাগ কমতে পারে।

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা

জ্যোতিষ অনুযায়ী অকারণে রেগে যাওয়ার প্রবণতা থাকলে বাড়ি ও কর্মক্ষেত্রের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার ওপর বিশেষ নজর দেওয়া জরুরি। মনে রাখবেন আশপাশ নোংরা থাকলে মনে রাগ বাড়তে পারে।

administrator

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *