www.machinnamasta.in

ওঁ শ্রীং হ্রীং ক্লী গং গণপতয়ে বর বরদ সর্বজনস্ময়ী বশমানয় ঠঃ ঠঃ

February 28, 2024 9:07 pm
partha tmc

তাঁরই ঘনিষ্ঠ মডেলের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছে ২১ কোটি টাকারও বেশি নগদ। প্রায় ৭০ লাখের গয়না ও আরও গুরুত্বপূর্ণ সব নথি। তাঁর আরেক ঘনিষ্ঠ অধ্যাপিকার নামে নাকি রয়েছে গোটা দশেক ফ্ল্যাট। অথচ, যাকে নিয়ে এত কথা সেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) সম্পত্তি নাকি মোটে সওয়া কোটি টাকা।

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের দুর্নীতির মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে তলব করে জার করেছিলেন এজলাসে। তাঁর বিরুদ্ধে নিয়োগের দুর্নীতিতে মদতে দেওয়ায় প্রমাণ রয়েছে বলে মনে করেছিল আদালত। সেখানে তাঁর কত সম্পত্তি, কত টাকা নগদ, ফ্ল্যাট কটি তা জানতে চায় আদালত। ব্যঙ্গ করে জানতে চাওয়া হয় শুনেছি আপনার কুকুরের জন্য নাকি একটি ফ্ল্যাট বরাদ্দ রয়েছে!

কিন্তু জানেন কি পার্রথের সম্পত্তি কত। চলুন দেখে নেওয়া যাক। নিজস্ব আয়কর রিটার্ন নয়, তবে নির্বাচন কমিশনে সদ্য দেওয়া তাঁরই হলফনামা থেকে দেখুন পার্থের ঝুলিতে কী কী আছে।

তাঁরই ঘনিষ্ঠ মডেলের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছে ২১ কোটি টাকারও বেশি নগদ। প্রায় ৭০ লাখের গয়না ও আরও গুরুত্বপূর্ণ সব নথি। তাঁর আরেক ঘনিষ্ঠ অধ্যাপিকার নামে নাকি রয়েছে গোটা দশেক ফ্ল্যাট। অথচ, যাকে নিয়ে এত কথা সেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) সম্পত্তি নাকি মোটে সওয়া কোটি টাকা। অন্তত এক বছর আগে রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের সময় নির্বাচন কমিশনে (Election Commission) দেওয়া হলফনামায় রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী এমনটাই দাবি করেছিলেন।

২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে পার্থর দেওয়া হলফনামা অনুযায়ী তাঁর মোট সম্পত্তির পরিমাণ ১ কোটি ১৬ লক্ষের কাছাকাছি। পার্থর দেওয়া হলফনামা অনুযায়ী, ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের সময় তাঁর হাতে নগদ ছিল মোটে ১ লক্ষ ৪৮ হাজার টাকা। বিভিন্ন ব্যাংকে সঞ্চিত ছিল ৬৪ লক্ষ ৪৬ হাজার টাকা। জীবন বিমার (Life Insurance) পলিসি ছিল প্রায় ২৫ লক্ষ টাকার। সব মিলিয়ে অস্থাবর সম্পত্তি ৯১ লক্ষ টাকার কাছাকাছি। এছাড়া তাঁর নাকতলার বাড়ির তৎকালীন মূল্য দেখিয়েছিলেন ২৫ লক্ষ টাকা।

পার্থর দাবি অনুযায়ী, ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনের পর থেকে ২০২১ বিধানসভা নির্বাচন পর্যন্ত এই পাঁচ বছরে তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ কমে গিয়েছে। ২০১৬ সালে পার্থ নিজের হলফনামায় দাবি করেছিলেন, তিনি মোট ১ কোটি ৬০ লক্ষ ৫৯ হাজার টাকার মালিক। অর্থাৎ ২০১৬ থেকে ২০২১ এই পাঁচ বছরে তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ কমেছে ৪৩ লক্ষ টাকার বেশি। এর আগে ২০১১ সালের বিধানসভার হলফনামা অনুযায়ী পার্থর সম্পত্তির পরিমাণ ছিল মোটে ৬৯ লক্ষ।

যদিও এখন অভিযোগ উঠছে, পার্থবাবুর বিপুল অঙ্কের বেনামি সম্পত্তি আছে। তাঁর মেয়ে-জামাইয়ের সম্পত্তির দিকেও নজর রয়েছে ইডির (ED)। সদ্যই পার্থ ঘনিষ্ঠ অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে যে বিরাট অঙ্কের টাকা পাওয়া গিয়েছে, সেটার সঙ্গেও পার্থর যোগাযোগ আছে বলেই সন্দেহ ইডি আধিকারিকদের। পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করার পর তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদে আর কী কী উঠে আসে সেটাই এখন দেখার।

administrator

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *